শনিবার, জুন 22, 2024
হোমপশ্চিমবঙ্গপশ্চিম বর্ধমানবার্ণপুরে মাঠ দখলের অভিযোগে ইস্কো কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভ

বার্ণপুরে মাঠ দখলের অভিযোগে ইস্কো কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভ

ইস্কো কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মাঠ দখলের অভিযোগে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভ, দ্রুত সমাধানের দাবি, এবং স্থানীয় কাউন্সিলারের সতর্কবার্তা: ছাই না তুললে নিজেরাই সরাব।

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিনিধি, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, বার্ণপুর: আসানসোলের হিরাপুর থানার নাকড়াসোঁতা গ্রামে সরকারি জুনিয়র বেসিক স্কুলের পাশে থাকা খেলার মাঠে ছাই ফেলে দখল করার অভিযোগ উঠেছে সেল আইএসপি বা ইস্কো কারখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। গ্রামবাসী এবং স্থানীয় কাউন্সিলরের দাবি, রাতের অন্ধকারে এই কাজ করা হচ্ছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত গ্রামের বাসিন্দারা বিক্ষোভ করেন। ইস্কো কারখানার মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক ভাস্কর কুমার জানান, বিষয়টি নিয়ে খোঁজ নিতে হবে, তাই এখনই কোনো মন্তব্য করা সম্ভব নয়।

- Advertisement -

আসানসোল পুরনিগমের ৯৭ নম্বর ওয়ার্ডের বার্ণপুরের নাকড়াসোঁতা স্কুল সংলগ্ন মাঠটি রাতের অন্ধকারে ইস্কো কারখানা কর্তৃপক্ষ দখল করে নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন রাজ্য সরকারের সারমারা জুনিয়র বেসিক স্কুলের প্রতিনিধি গোবিন্দ দুলাল মন্ডল। তিনি বলেন, “ইস্কো কারখানা আধুনিকীকরণের সময় আমাদের পুরনো স্কুলের জায়গা নিয়ে নতুন একটি স্কুল তৈরি করে দিয়েছিল অন্য জায়গায়। যেহেতু সমপরিমাণ জমি দেওয়া হয়নি, সেই কারণে এই মাঠটিকে খেলার মাঠ হিসেবে ব্যবহার করার অনুমতি দেওয়া হয়। গত ৫০-৬০ বছর ধরে স্থানীয় বাসিন্দারা এই মাঠটি খেলাধুলা, সামাজিক কাজ এবং পুজোর জন্য ব্যবহার করে আসছেন। গ্রামে এই একটি বড় মাঠই রয়েছে”।

গোবিন্দ দুলাল মন্ডল আরও জানান, ইস্কো কর্তৃপক্ষ CSR (Corporate Social Responsibility) তহবিল থেকে গ্রামবাসীদের কোনো সুবিধা দেয়নি। তারা পানীয় জল, কমিউনিটি সেন্টার বা স্থানীয় মন্দির নির্মাণেও সাহায্য করেনি, যদিও এসব করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। এখন গ্রামবাসীদের না জানিয়ে মাঠটি দখল করার চেষ্টা করা হচ্ছে, যা তারা মেনে নিতে পারছেন না।

- Advertisement -

স্থানীয় কাউন্সিলার অনুপ মাজি বলেন, “আমরা চাই অবিলম্বে ইস্কো কর্তৃপক্ষ সামনে এসে এই ব্যাপারে কথা বলুক। তা না হলে গ্রামবাসীদের আন্দোলন চলবে”। খবর পেয়ে হিরাপুর থানার পুলিশ বিকেলের দিকে ঘটনাস্থলে আসে এবং ইস্কো কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে। পুলিশ গ্রামবাসীদের আশ্বাস দেয় যে, শীঘ্রই এই ব্যাপারে একটি আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করা হবে। গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, ইস্কো কর্তৃপক্ষকে কালকের মধ্যে ছাই তুলে নিতে হবে। তারা তুলে না নিলে গ্রামবাসীরা নিজেরাই ছাই সরিয়ে ফেলবেন।

- Advertisement -
আরও পড়ুন
- Advertisment -

জনপ্রিয় খবর