Tuesday, May 21, 2024
Homeপশ্চিমবঙ্গপশ্চিম বর্ধমানচিত্তরঞ্জনে দুটি 'পকেট গেট' বন্ধ করার নোটিশ, সিদ্ধান্ত কার্যকর না করতে লেবার...

চিত্তরঞ্জনে দুটি ‘পকেট গেট’ বন্ধ করার নোটিশ, সিদ্ধান্ত কার্যকর না করতে লেবার ইউনিয়নের চিঠি

চিত্তরঞ্জন রেল ইঞ্জিন কারখানার দুটি পকেট গেট বন্ধের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে লেবার ইউনিয়নের চিঠি, আরও দুটি নতুন গেট নির্মাণের প্রস্তাব। কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তের অপেক্ষা।

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিনিধি, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, চিত্তরঞ্জন: আসানসোল লোকসভা নির্বাচন শেষ হতেই চিত্তরঞ্জন রেল ইঞ্জিন কারখানা (সিএলডব্লিউ) কর্তৃপক্ষ আবারও রেল এলাকায় “পকেট গেট” বন্ধ করার নোটিশ জারি করেছে। নোটিশে জানানো হয়েছে যে চিত্তরঞ্জন সীমানায় নামোকেশিয়া পকেট গেট এবং লোয়ারকেশিয়া সংলগ্ন রামকৃষ্ণ পাঠচক্র পকেট গেট দুটি বন্ধ করা হবে। ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজারের নাম উল্লেখ করে নোটিশে জানানো হয়েছে, ১৬ মে বৃহস্পতিবার রামকৃষ্ণ পাঠচক্র পকেট গেট এবং ১৭ মে শুক্রবার নামোকেশিয়া পকেট গেট বন্ধ করা হবে। এই কারণে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা রক্ষীর ব্যবস্থাও করা হচ্ছে। মঙ্গলবার বিকেলে স্থানীয় গ্রামবাসী ও শহরের ব্যবসায়ীরা এই নোটিশের কথা জানতে পারেন, যা তাদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।

- Advertisement -

উল্লেখ্য, লোকসভা নির্বাচনের আগে রেল কর্তৃপক্ষ এই পকেট গেট দুটি বন্ধ করার জন্য নোটিশ জারি করেছিল। তবে তখন নামোকেশিয়া, কল্যাণগ্রাম, জিতপুর, প্রান্তপল্লীসহ বিস্তীর্ণ এলাকার হাজার হাজার বাসিন্দা ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারা চিত্তরঞ্জন শহরে প্রবেশের জন্য ৩ নম্বর গেট বন্ধ করার হুমকি দেন এবং ভোট বয়কট করার সিদ্ধান্ত লিখিতভাবে প্রশাসনের কাছে জানান। এরপর পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রশাসন রেলের সাথে কথা বলে পকেট গেট দুটি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত থেকে তাদের বিরত করেন। কিন্তু এবার ভোট শেষ হতেই চিত্তরঞ্জন রেল ইঞ্জিন কারখানা কর্তৃপক্ষ আবার গেট দুটি বন্ধ করার উদ্যোগ নেওয়ায় নামোকেশিয়া সহ পার্শ্ববর্তী কলোনি ও গ্রামীণ এলাকার বাসিন্দারা এককাট্টা হয়েছেন। তারা জানিয়ে দিয়েছেন, এই গেট দুটি বন্ধ করতে এলে চরম বিরোধিতা করা হবে। সালানপুর ব্লক প্রশাসনের বিডিও দেবাঞ্জন বিশ্বাস বলেন, “স্থানীয় বাসিন্দাদের কথা ভেবে আগেই জেলাশাসক উদ্যোগী হয়েছিলেন। এবারও তিনি বিষয়টি প্রশাসনের উচ্চ স্তরে জানাবেন”।

অন্যদিকে, সালানপুর থানার ইন্সপেক্টর ইনচার্জ অমিত কুমার হাটি ঐ এলাকায় শান্তি ও শৃঙ্খলা রক্ষা নিয়ে নজর রাখছেন। চিত্তরঞ্জন থানার ইন্সপেক্টর ইনচার্জ ইসমাইল আলি বলেন, চিত্তরঞ্জন রেল ইঞ্জিন কারখানা কর্তৃপক্ষ তার সঙ্গে যোগাযোগ করলে, তিনি বাসিন্দাদের কথা বিবেচনা করে পকেট গেট সম্পূর্ণ বন্ধ না করে বাইক চলাচলের উপযুক্ত ব্যবস্থা রাখতে আলোচনা করবেন।

- Advertisement -

এ বিষয়ে সালানপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সহ-সভাপতি বিজয় সিং বলেন, দ্রুত উপযুক্ত জায়গায় আলোচনা করে কি ব্যবস্থা নেওয়া যায় তা দেখা হচ্ছে। তবে স্থানীয় একটি মহল মনে করছে, রেল এলাকার বাইরের বিপুল সংখ্যক মানুষকে অসুবিধায় ফেলে পকেট গেট দুটি বন্ধ করতে গেলে ব্যাপক গোলমাল ছড়াতে পারে। চিত্তরঞ্জন রেল শহরে বাইরে থেকে গাড়ি ঢোকা বা বের হওয়া বন্ধ করার জন্য স্বতঃস্ফূর্তভাবে জমায়েত হতে পারে ৩ নম্বর গেট এলাকায়। এতে করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সমস্যা তৈরি হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এদিকে, বুধবার চিত্তরঞ্জন শহরের পকেট গেট দুটি বন্ধ না করার আবেদন জানিয়ে সিএলডব্লু লেবার ইউনিয়ন কারখানা কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়েছে। ইউনিয়নের পক্ষে রাজীব গুপ্ত এবং অন্যান্যরা ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজারের হাতে এই চিঠি তুলে দেন। চিঠির প্রতিলিপি পশ্চিম বর্ধমান জেলা সিটুর সাধারণ সম্পাদক বংশগোপাল চৌধুরী এবং চিত্তরঞ্জন রেল ইঞ্জিন কারখানার জেনারেল ম্যানেজারের কাছেও পাঠানো হয়। তবে পরিস্থিতি যা তাতে, বৃহস্পতিবার রামকৃষ্ণ পাঠচক্র পকেট গেট এবং শুক্রবার নামোকেশিয়া পকেট গেট বন্ধ করার সিদ্ধান্তে চিত্তরঞ্জন রেল ইঞ্জিন কারখানা কর্তৃপক্ষ অনড় রয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

- Advertisement -

লেবার ইউনিয়নের পক্ষ থেকে চিঠিতে বলা হয়েছে, এখনই এই গেট দুটি বন্ধ না করে চিত্তরঞ্জন শহরে প্রবেশ এবং প্রস্থানের জন্য আরও দুটি নতুন গেট তৈরি করা হোক। বর্তমানে ১, ২ এবং ৩ নম্বর গেট দিয়ে শহরে ঢোকা ও বেরোনো হয়। লেবার ইউনিয়ন দাবি করেছে, ১৯৪৭ সালের পরিকল্পনায় কিছুটা পরিবর্তন করে উপযুক্ত জায়গায় নতুন করে ৪ ও ৫ নম্বর গেট তৈরি করা হোক। নতুন গেটগুলো যতদিন না তৈরি হচ্ছে, ততদিন রামকৃষ্ণ পাঠচক্র এবং নামোকেশিয়া পকেট গেট দুটি মোটরবাইক, সাইকেল সহ অন্যান্য যানবাহন চলাচলের জন্য খোলা রাখা হোক।

এখন দেখার বিষয়, রেল ইঞ্জিন কারখানা কর্তৃপক্ষ এই প্রস্তাবে কী সিদ্ধান্ত নেয়।

- Advertisement -
Sk Sahiluddin
Sk Sahiluddinhttps://www.tspbangla.com/profile/usksahil
Sk Sahiluddin is a seasoned journalist and media professional with a passion for delivering accurate and impactful news coverage to a global audience. As the Editor of TSP Bangla, he plays a pivotal role in shaping the editorial direction and ensuring the highest journalistic standards are upheld.
আরও পড়ুন
- Advertisment -

জনপ্রিয় খবর