Tuesday, May 21, 2024
Homeপশ্চিমবঙ্গপশ্চিম বর্ধমানরানীগঞ্জে রোড শোতে জনজোয়ার দেখে উচ্ছ্বাসিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর ৩০ আসনের ডাক

রানীগঞ্জে রোড শোতে জনজোয়ার দেখে উচ্ছ্বাসিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর ৩০ আসনের ডাক

রোড শো শেষে হুড খোলা গাড়ির উপরে বক্তব্য রাখতে গিয়ে অমিত শাহ বলেন, "এস. এস. আহলুওয়ালিয়া সাংসদ হবেন আর বাংলায় ৩০ আসন পেলে এবারে ৪০০ পার হবে"।

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিনিধি, শুক্রবার, ১০ মে ২০২৪, রানীগঞ্জ: এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলা থেকে কমপক্ষে ৩০ আসনে জেতানোর ডাক দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। বাংলাকে ‘সোনার বাংলা’ গড়ার জন্য দূর্নীতি, কয়লা চুরি, বালি চুরি ও গরু পাচার বন্ধ করার জন্য ডাক দিলেন নরেন্দ্র মোদির ডেপুটি। একইসঙ্গে তার দাবি, এবার ৪০০ পার হলেই এইসব কিছু বিজেপি সরকার করবে।

- Advertisement -

শুক্রবার সন্ধ্যায় আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী এস. এস. আহলুওয়ালিয়ার সমর্থনে রানীগঞ্জ শহরে হুড খোলা গাড়িতে রোড শো করেন অমিত শাহ। তার সঙ্গে প্রার্থী ছাড়াও ছিলেন জেলা সভাপতি বাপ্পা চট্টোপাধ্যায়, কুলটির বিধায়ক ডাঃ অজয় পোদ্দার। হুড খোলা গাড়িতে ওঠার পরে অমিত শাহকে উত্তরীয় পড়িয়ে স্বাগত জানান জেলা সভাপতি ও বিধায়ক।

এদিন সন্ধ্যে সাড়ে ছটা নাগাদ অন্ডাল বিমানবন্দর থেকে সড়কপথে রানীগঞ্জে আসেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। রানীগঞ্জ শহরের সিয়ারশোল রাজবাড়ি থেকে তার রোড শো শুরু হয়। তাকে দেখতে তখন রাস্তার দুধারে বিজেপির পতাকা হাতে প্রচুর মানুষ। সবার মুখে জয় শ্রীরাম স্লোগান। তা দেখে রোড শোর শুরুতে উচ্ছ্বাসিত অমিত শাহ নিজে মাইক নিয়ে বেশ কয়েকবার পাল্টা স্লোগান দেন। এক কিলোমিটারের মতো রাস্তা পার করে সন্ধ্যে সাড়ে সাতটার পরে শিশুবাগান এলাকায় কাজি নজরুল ইসলামের মূর্তির সামনে গিয়ে এই রোড শো শেষ হয়। এর মাঝে রাস্তায় থাকা শ্যাম মন্দির দেখে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রোড শোর হুড খোলা গাড়ি থেকে প্রণাম করেন।

- Advertisement -

রোড শো শেষে হুড খোলা গাড়ির উপরে বক্তব্য রাখতে গিয়ে অমিত শাহ বলেন, “এবারের ভোটে আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের ইভিএমে ১ নং বোতাম টিপে এস. এস. আহলুওয়ালিয়াকে ভোট দিলেই মোদিজী প্রধানমন্ত্রী হবেন। এস. এস. আহলুওয়ালিয়া সাংসদ হবেন আর বাংলায় ৩০ আসন পেলে এবারে ৪০০ পার হবে। নজরুল মূর্তির সামনে দাঁড়িয়ে বলছি, কাজি নজরুল ইসলাম বাংলায় শিক্ষার জন্য অনেক কাজ করেছেন। আগে নজরুল ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান শোনা যেতো। এখন তার বদলে বোমার শব্দ শোনা যায়। এইসব বন্ধ করে সোনার বাংলা গড়তে পারবে একমাত্র বিজেপি”।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সন্দেশখালির প্রসঙ্গ টেনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তার ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, “ওখানে মহিলাদেরকে নির্যাতন করা হয়েছে। আপনারা কি চান না, এইসব বন্ধ হোক? আপনারা কি চান না কাটমানি ও সিন্ডিকেট বন্ধ হোক? যারা কয়লা চুরি, বালি চুরি ও কয়লা পাচার করেছে, তারা শাস্তি পাক, তা কি আপনারা চান না? আপনারা কি চান না সিএএ কার্যকর হয়ে, যারা নাগরিক নন, তারা নাগরিকত্ব পান?”।

- Advertisement -
আরও পড়ুন
- Advertisment -

জনপ্রিয় খবর